ভিডিওটা যোগাযোগমন্ত্রীকে দেখতে শিশুটির বাবার অনুরোধ !

বাসের ধাক্কায় মায়ের কোল থেকে সড়কে ছিটকে পড়া শিশুর মৃত্যুর ঘটনার বিচার চেয়েছেন শিশুটির বাবা হারুন অর রশীদ। এ ঘটনার ভিডিও ফুটেজটি তিনি যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে দেখার অনুরোধ জানিয়েছেন।

হারুন অর রশীদের কোলে কাফনে মোড়ানো নিথর আকিফা—একজন বাবার হাতে দুনিয়ার সবচেয়ে দুর্বহ বোঝা। ঢামেক, ৩০ আগস্ট। ছবি: দীপু মালাকারআজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গের সামনে থেকে হারুন ফোনে প্রথম আলোকে বলেন, বাসটিকে থামা অবস্থায় দেখতে পেয়েই তাঁর স্ত্রী সন্তানকে নিয়ে বাসের সামনে দিয়ে পার হচ্ছিলেন। কিন্তু চালক না দেখেই চালিয়ে দিলেন। তার মানে চালক ইচ্ছেকৃতভাবে চাপা দিয়েছেন। যোগাযোগমন্ত্রী বলুক এটি ইচ্ছেকৃত কি না।

সন্তান আকিফাকে হারিয়ে বিধ্বস্ত রিনা খাতুন। ঢামেক, ৩০ আগস্ট। ছবি: দীপু মালাকারকুষ্টিয়া মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) শেখ ওবায়দুল্লাহ বলেন, এরই মধ্যে বাসের মালিক, চালক ও সহকারীর নাম, ঠিকানা, বাসের নম্বর সংগ্রহ করা হয়েছে। শিশুটির বাবা ফিরলেই মামলা নেওয়া হবে।

বড় অল্প সময়ে পুতুল খেলার দিন ফুরিয়ে গেল আকিফার। ছবি: সংগৃহীতগত মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের চৌড়হাস মোড় এলাকায় আকিফাকে কোলে নিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলেন তার মা রিনা খাতুন। থেমে থাকা একটি বাসের সামনে দিয়ে রাস্তা পার হওয়ার সময় বাসটি কোনো ধরনের হর্ন না দিয়েই আচমকা মা-সন্তানকে ধাক্কা দিয়ে চলে যায়। এতে মায়ের কোল থেকে ছিটকে রাস্তায় গিয়ে পড়ে আকিফা।

প্রথমে তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে শিশুটির অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। আজ বৃহস্পতিবার ভোররাত সাড়ে চারটায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে সে।

আকিফার স্বজনদের আহাজারি। ছবি: প্রথম আলোএ ঘটনার ভিডিও ফুটেজ রাস্তার ধারে থাকা একটি দোকানের সিসি ক্যামেরায় ধারণ হয়। ফুটেজে দেখা যায়, বাসটি দাঁড়িয়ে ছিল। বাসের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় বাসটি চলতে শুরু করে। এতে ধাক্কা লেগে মা ও শিশুটি রাস্তায় পড়ে যায়। এই ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এখন ভাইরাল।

গতকাল বুধবার ঘটনাস্থলে স্থানীয় বাসিন্দাসহ স্কুলের শিক্ষার্থীরা বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করে।

About বার্তাটাইম

View all posts by বার্তাটাইম →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.